থামছে না জামতৈল রেলস্টেশনের টিকেট কালো বাজারে বিক্রি
১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন


  

  • কামারখন্দ/ অপরাধ:

    থামছে না জামতৈল রেলস্টেশনের টিকেট কালো বাজারে বিক্রি
    ২৪ জুন, ২০১৮ ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত

    নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সিরাজগঞ্জ কামারখন্দ উপজেলায় জামতৈল রেলওয়ে স্টেশনের দুই স্টেশন মাস্টারের বিরুদ্ধে টিকেট কালো বাজারে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। 


    তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, আসন্ন ঈদ উল ফিতরের ছুটি শেষে মানুষ রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাওয়ার উদ্দেশ্যে ট্রেনের আগাম টিকেট ও চলমান ট্রেনের টিকেট জামতৈল রেলওয়ে স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন মাস্টার গোলাম হোসেন ও আরেক স্টেশন মাস্টার আব্দুল হান্নান যৌথভাবে টিকিটি কালো বাজারে বিক্রি করছে। যার কারণে সাধারণ অনেক যাত্রী টিকেট পাচ্ছেন না ফলে ব্যাপক হয়রানির শিকার হচ্ছেন এসব যাত্রী। কালো বাজারে বিক্রিত টিকেট অতিরিক্ত মূল্যে কিনতে হচ্ছে যাত্রীদের। অতিরিক্ত ভাড়ায় একই টিকেট একাধিক যাত্রীর নিকট বিক্রিরও অভিযোগ রয়েছে এ দুই স্টেশন মাস্টারের বিরুদ্ধে। 


    উপজেলার হালুয়াকান্দি গ্রামের গোলাম কিবরিয়া নামে এক যাত্রী জানান, আমি সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেক্স ট্রেনের আগাম টিকেটের জন্য গেলে কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার বলে টিকেট শেষ হয়ে গেছে। তার কয়েক মিনিট পর আমার ছেলেকে পাঠালে অতিরিক্ত মূল্য দিলে আগাম টিকেট দেন।

     
    নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক যাত্রী জানান, আমি ঈদের ছুটি শেষে (২১জুন) বৃহস্পতিবার সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকেট নিয়ে ট্রেনে উঠে দেখি আমার যে আসন নম্বর একই আসন বিক্রি করা হয়েছে আরেক যাত্রীর কাছে। এতে আমার পরিবার নিয়ে ব্যাপক বিড়ম্বনায় পড়তে হয়েছে।


    মশিউর রহমান নামে এক যাত্রী জানান, জামতৈল রেলস্টেশন থেকে আমি নিয়মিত যাতায়াত করি ট্রেনের অগ্রিম টিকিটের জন্য স্টেশন মাস্টারের নিকট গেলে টিকিট নেই বলে, পরবর্তিতে অতিরিক্ত ৫০ টাকা বেশি দিলে টিকেট পাওয়া যায়।


    জামতৈল রেল স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন মাস্টার গোলাম হোসেন জানান, টিকিট কালো বাজারে বিক্রির অভিযোগ ভিত্তিহীন এবং জামতৈল রেল স্টেশন থেকে একই আসন দুজনের নিকট বিক্রির বিষয়টি হলো, অনেক সময় কিছু ব্যক্তি তাড়াহুড়ো কওে টিকিট ক্রয় করেন তারা নিজ হাতে টিকিটের উপরে আসন লিখেন তাই এমনটা হয়েছে।


    পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাকশির বিভাগীয় ব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার জানান, ঈদের ছুটির কারণে এখন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। ঈদের পওে (২৫ জুন) এর পর অভিযোগের সত্যতা মিললে স্টেশন মাস্টারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

    অনলাইন নিউজ এডিটর ২৪ জুন, ২০১৮ ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 718 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    কামারখন্দ অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    7670750
    ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন