পৌর এলাকার মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গলিতে অপরিকল্পিত ড্রেন নির্মান দশ হাজার মানুষের খাবার পানি পাইপ দেয়া হয়েছে ড্রেনের ভিতরে
২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০৭:২৮ পূর্বাহ্ন


  

  • সিরাজগঞ্জ/ জনদুর্ভোগ:

    পৌর এলাকার মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গলিতে অপরিকল্পিত ড্রেন নির্মান দশ হাজার মানুষের খাবার পানি পাইপ দেয়া হয়েছে ড্রেনের ভিতরে
    ০৯ জুলাই, ২০১৮ ০৭:৫৩ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    বিশেষ প্রতিনিধি ঃ সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গলিতে অপরিকল্পিত ভাবে যেনতেন ভাবে নির্মান করা হচ্ছে ড্রেন। আর এই ড্রেনের ভিতর দেয়া হয়েছে প্রায় দশ হাজার মানুষের খাবার পানির সাপ্লাই এর পাইপ। সরজমিনে দেখা গেছে সিরাজগঞ্জ পৌর সভার অর্থায়নে শহরের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গলি এবং জাতীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্নার বাড়ির পিছন দিয়ে ড্রেন নির্মান করা হচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গলির মধ্যে দিয়ে কাটাখালি হয়ে গোশালা পর্যন্ত পৌরসভার প্লাষ্টিকের সাপ্লাই’র পানি সরবারহের পাইপ রয়েছে। এই বিশুদ্ধ পানি গোশালা,হাজি ব্যারাক,মন্ডল পাড়া,রেলগেইটসহ আশে পাশে প্রায় দশ হাজার মানুষ ব্যবহার করে। কিন্তু ড্রেন নির্মানের সময় এই পাইপ না সরিয়ে ড্রেনের ভিতর দেয়া হয়েছে। ফলে ড্রেনের নোংরা পানির ভিতর দিয়ে প্রবাহিত হবে খাবার পানি। ড্রেন পরিস্কার করার সময় বা যে কোন ভাবে পানির পাইপ সামান্য ছিদ্র হয়ে গেলে বা ফেটে গেলে বিশুদ্ধ পানি হয়ে যাবে ড্রেনের নোংরা পানি মিশ্রিত  দুষিত পানি। আর তা ব্যবহার করে মানুষের নানান পানি বাহিত রোগ হওয়ার সম্ভবনা দেখা দিবে। এলাকাবাসি একাধিকবার ঠিকাদারের সাইডের লোকজন কে পাইপ সরানোর কথা বললে তারা তা কর্নপাত না করে ড্রেনের মধ্যেই পাইপ দিয়ে নির্মান কাজ করে। এ বিষয়ে পৌরসভার পানি বিভাগের দায়িত্বরত কর্মকর্তাকে অভিযোগ করা হলে তিনি পর্যবেক্ষনের জন্য পৌরসভার পানি বিভাগের দুজন কে সরজমিনে তদন্তে পাঠান। তদন্তে এসে তারা ঘটনার সত্যতা পেয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কে কাজ বন্ধ রাখার আহবান জানান। কিন্ত ঠিকাদার তাদের কথা না শুনে কাজ করেন। এ বিষয়ে পৌরসভার প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম কে জানানো হলে তিনি বলেন। পানির পাইপ যাতে ফেটে না যায় সেজন্য পাইপের উপর দিয়ে ঢালাই করে দেয়া হবে। তবে কাজটি স্বাস্থ্যসম্মত হচ্ছে কিনা এ বিষয়ে তিনি কোন উত্তর দেননি। নির্মান কাজের সাইডে থাকা সজল নিজেকে পৌরসভার প্রকৌশলী পরিচয় দিয়ে বলেন ড্রেনের মধ্যে পাইপ দিয়েই ড্রেন নির্মানের নকশা করা হয়েছে। যদিও তিনি প্রতিবেদক কে নকশা দেখাতে পারেন নি। একটি প্রথম শ্রেনীর পৌরসভায় কি ভাবে দুষিত পানির মধ্যে দিয়ে বিশুদ্ধ পানি সরবারহের পাইপ দেয়ার নকশা করেন তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে জনমনে। পৌর কর্তৃপক্ষের যথাযথ তদারকি না থাকায় নির্মান কাজের মান নিয়ে উঠেছে নানান প্রশ্ন। পুরাতন ইট দিয়ে সোলিং করা,ইচ্ছে মত মাপে সাইড দেয়াল তৈরি,পাথর পরিস্কার না করে ঢালাই দেয়াসহ কাজের নানান অনিয়মের কথা তুলেছে এলাকাবাসি। নির্মান কাজটি কোন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের এটা নিয়েও সৃস্টি হয়েছে ধু¤্রজালের সাইডের লোকজন বলছে কাজটি ১৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শাহদৎ হোসেন করছে। কিন্তু শাহদৎ হোসেন কে ফোন করা হলে তিনি বলেন কে করছে বা কার কাজ সেটা তিনি জানেন না। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গলিতে তার কোন কাজ চলছে না। ড্রেন কতটুব প্রস্থ হবে কতটুকু গভীর হবে। নির্মান কাজে কি কি সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছে জানতে চাইলে সাইডের সাইড ম্যানেজার বলেন এই কিছু তিনি জানেন না এবং জানার প্রয়োজন নেই। শ্রমিকরা যে ভাবে কাজ করছে এটাই সঠিক হচ্ছে। এসময় তিনি বলেন মোক্তার পাড়াসহ আরো কয়েকটি স্থানে আমরা সাইড চালিয়েছি কোথাও এসব লাগে নি। তিনি আরো বলেন পৌরসভা কাজ বুঝে নিবে ইঞ্জিনিয়ার মান দেখে নিবেন এখানে অন্য কাউকে জবাব দিহিতা করতে পারব না। এসময় তিনি আরো বলেন ড্রেনের মধ্যে খাবার পানি লাইন গেছে তাতে কি হয়েছে এটা কি আমাদের ভুল পৌরসভা ভুল করেছে এই রকম নকশা করে। গণমাধ্যম কর্মীরা ড্রেনের মধ্যে খাবার পানির পাইপ দেয়া হচ্ছে কেনো প্রশ্ন করলে ঠিকাদারের সাইড ম্যানেজার আর পৌরসভার দায়িত্বে থাকা সজল সাংবাদিকদের উপর চড়াও হন। এমন একটি জনগুরুত্বপুর্ন বিষয়ে কেনো পৌরসভা নিরব ভুমিকা পালন করলো তা নিয়ে ভাবনায় পড়েছে স্থানীয়রা। এলাকাবাসির দাবি সঠিকভাবে নিয়মতান্ত্রিক ভাবে কাজ করা এবং দশহাজার মানুষের খাবার পানির লাইন ড্রেন থেকে সরিয়ে দ্রুত বিকল্প পথ তৈরি পানি পাইপ বসানোর।

     

    স্টাফ করেস্পন্ডেন্ট, সিরাজগঞ্জ ০৯ জুলাই, ২০১৮ ০৭:৫৩ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 293 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    সিরাজগঞ্জ অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    7339700
    ২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০৭:২৮ পূর্বাহ্ন