হাসপাতাল বেডে শুয়ে কাতরাচ্ছে পরিচয়হীন মহিলা 'লজ্জার আবরণে মানবতা'
১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ১২:২৬ পূর্বাহ্ন


  

  • কাজিপুর/ জীবনযাত্রা:

    হাসপাতাল বেডে শুয়ে কাতরাচ্ছে পরিচয়হীন মহিলা 'লজ্জার আবরণে মানবতা'
    ১৮ জুলাই, ২০১৮ ০৪:৩১ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    আবদুল জলিলঃ কাজিপুরঃ হাসপাতালের রেজিস্টারে নাম অজ্ঞাত। বয়স আনুমানিক ৫০ বছর। কঙ্কালসদৃশ শরীরটা এখনও জানান দিচ্ছে যৌবনে তার চেহারায় লাবণ্য ধরা দিয়েছিল। কোটরে ঢুকে যাওয়া বড় বড় দুটি চোখ জানান দিচ্ছে তিনি অষ্টাদশীতে যে কারো মন কেড়ে নেবার যোগ্যতা বহন করেছেন। সেই অজ্ঞাত মহিলা এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে হাসপাতালের বেডে শুয়ে কেবলই একদৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকেন তার বেডেও উপরে  লাগানো হাসপাতালের সিলিং ফ্যানের দিকে। 


    সাধারন দর্শনার্থী, পাশের বেডের রোগির স্বজন এমনকি ডাক্তার নার্স; কে তাকে দেখতে এলো সেদিকে তার কোন খেয়াল নেই। তার বেডের সামনে গিয়ে প্রথমে যে কেউ চমকে উঠবেন। কঙ্কাল ভেবে কেউ কেউ দৌঁড়ে সরে যেতে পারেন। এমনই এক হতভাগ্য মহিলা এখন কাজিপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মহিলা ওয়ার্ডে শুয়ে শুয়ে মৃত্যুর প্রহন গুনছেন। হয়ত মৃত্যু তার আগেই হতে পারতো যখন তিনি উপজেলা সোনামুখী সিএনজি স্ট্যান্ড এলাকায় এক চায়ের দোকানের বারান্দায় মরার মতো পড়েছিলেন। মৃত্যু তাকে কাছ থেকে ছুঁয়ে গেছে কিন্তু একেবারে তার করে নিতে পারেনি। না পারার এই ধৃষ্টতা দেখানোর পথ করে দিয়েছেন কাজিপুরের কিছু নিবেদিতপ্রাণ মানুষ। 


    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সেনা সদস্য এবং মুজিবপাড়ার আব্দুস সালাম ও কয়েকজন শিক্ষক মিলে গত ১২ জুলাই সোনামুখী থেকে ওই মহিলাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করায়। কিন্তু সেখানে চিকিৎসাসেবা পেতে অনেক বেগ পেতে হয়েছে। ভর্তির পর তার সেবা যতেœর জন্যে হাসপাতাল কর্তৃৃপক্ষ রোগির একজন স্বজন কিংবা একজন লোক চায়। কিন্তু যার এ দুনিয়ায় কেউ নেই তাকে দেখভাল করার জন্যে হাসপাতালে কে যাবেন? কর্তৃপক্ষ এ নিয়ে চিকিৎসা দিতে অবজ্ঞা অবহেলা করেছে বলে সূত্রে জানা গেছে। 


    মঙ্গলবার দুপুরে এই প্রতিবেদক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে  গিয়ে ওই মহিলার খোঁজ খবর নেন। এসময় কথা হয় দায়িত্বরত সিনিয়র স্টাফ নার্স আনোয়ারার সাথে। তিনি জানান, বর্তমানে ওই মহিলার জন্যে একজন লোক কাজ করছে। তিনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের লোকবল সংকটের কথা জানান। তিনি জানান ৫০ জন রোগির দেখভাল ও কাজ করার জন্যে রয়েছে মাত্র দুইজন লোক। 


    উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম জানান, রোগির অবস্থা ভালো। তবে আমরা সন্দেহ করছি তার জটিল কোন রোগ থাকতে পারে। পরীক্ষার ফলাফল আসলেই নিশ্চিত হতে পারবো। এদিকে ভয়েস অব কাজিপুরের  সাধারন সম্পাদক আব্দুল মজিদ বাবু ও আমিনুল ইসলামের প্রচেষ্টায় এরই মধ্যে একজন মহিলা সার্বক্ষণিক ওই রোগির পাশে রয়েছে।

    অনলাইন নিউজ এডিটর ১৮ জুলাই, ২০১৮ ০৪:৩১ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 349 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    কাজিপুর অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    7285513
    ১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ১২:২৬ পূর্বাহ্ন