কাজিপুরের মেঘাই নৌকা ঘাঁট হতে নাটুয়ারপাড়া ঘাঁট পযর্ন্ত স্পিড বোট সার্ভিস চাই!
২০ জানুয়ারী, ২০১৯ ০৮:১১ পূর্বাহ্ন


  

  • কাজিপুর/ যোগাযোগ:

    কাজিপুরের মেঘাই নৌকা ঘাঁট হতে নাটুয়ারপাড়া ঘাঁট পযর্ন্ত স্পিড বোট সার্ভিস চাই!
    ১২ আগস্ট, ২০১৮ ০৮:৩৭ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    কাজিপুরের মেঘাই নৌকা ঘাঁট হতে নাটুয়ারপাড়া ঘাঁট পযর্ন্ত স্পিড বোট সার্ভিস চাই!


    সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলার যমুনা পূর্ব অঞ্চলের ৬টি ইউনিয়নের সাথে যোগাযোগেরর এক মাত্র মাধ্যম ইঞ্জিন চালিত নৌকা। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন এই অঞ্চলে মানুষ নানা সমস্যার সম্মূখীন হলেও অন্যতম সমস্যার মধ্যে রয়েছে যাতায়ত ব্যবস্থা। মেঘাই নোকা ঘাট থেকে নাটুয়ারপাড়া পৌছাতে নৌকাতে সময় লাগে ১ ঘন্টা। জনপ্রতি ভাড়া নেয়া হয় ২৫ টাকা। ভয়ানক যমুনা নদী পাড়ি দিতে নৌ- যান হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে ইঞ্জিন চালিত নৌকা।জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়ত করতে হচ্ছে চরাঞ্চলের ৬টি ইউনিয়ন বাসীর।


    সরজমিনে নাটুয়ারপাড়া নৌকাঘাটে গেলে দেখা যায়, ঘন্টার পরে ঘন্টা নৌকার অপেক্ষায় বসে রয়েছে ২০ থেকে ২৫ জনের মত যাত্রী। কথা হয় নিয়মিত যাতায়ত করা রহমান, ইদ্রিস, আসমা, সহ আরো কয়েকজন যাত্রীর সাথে, তারা জানালের বিগত দিনে যাতায়ত ব্যবস্থা উন্নয়নের জন্য রাজনৈতিক দল গুলো প্রতিশ্রতি দিয়ে আসলেও বাস্তবে উন্নয়নের কোন ছোয়া লাগেনি চরাঞ্চলের ৫টি ইউনিয়নের সাথে কাজিপুর সদরের নৌ যোগাযোগব্যবস্থার। বিগত দিনে যমুনা পূর্ব চরাঞ্চলের থেকে অসুস্থ রোগী নিয়ে কাজিপুর সদর হাসপাতালে আসার সময় পথে মধ্যে নৌকা মর্ধ্যে রোগী মারা যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে অহর অহর।


    অনেক সময় দেখা যায় প্রসূতি মা নৌকার মর্ধ্যে মারা জান অথবা বাচ্চা মারা যায়। আবার কোনো কোনো সময় নৌকাতেই মায়ের ডেলিভারি হয়ে যায়।তবে যদি স্পিড বোর্ড সার্ভিস চালু হয়।তাহলে স্পিড বোর্ডের মাধ্যমে কাজিপুর সদরে পৌঁছতে সময় লাগবে মাত্র ৮-১০ মিনিট।


    সরকার কিংবা নৌ- মন্ত্রনালয়ের পক্ষ থেকেও যমুনা পূর্ব চরাঞ্চল বাসীর যাতায়ত ব্যবস্থার কোন সু- পদক্ষেপ লক্ষ করা যাচ্ছে না।


    যমুনা পূর্ব চরাঞ্চলের ৬টি ইউনিয়ন বাসীর প্রধান সমস্যা যাতায়ত ব্যবস্থা। এ সমস্যার কবল থেকে কবে মুক্ত হবে চরাঞ্চল বাসী তা জানা না থাকলেও অচিরেই ঝুঁকিপূর্ন ইঞ্জিন চালিত নৌকার পরিবর্তে স্পিড বোর্ড সার্ভিস চালু করবে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, যাতায়ত ব্যবস্থায় দুর্ভোগ লাঘব হবে চরাঞ্চল বাসীর এমনটাই প্রত্যসা কাজিপুরের যমুনা পূর্ব অঞ্চলের মানুষের।


    লেখকঃ মোঃআলমগীর হোসেন (বিবিএ)
    নাটুয়ারপাড়া, কাজিপুর,
    সিরাজগঞ্জ।

    অনলাইন নিউজ এডিটর ১২ আগস্ট, ২০১৮ ০৮:৩৭ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 492 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    কাজিপুর অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    8438785
    ২০ জানুয়ারী, ২০১৯ ০৮:১১ পূর্বাহ্ন