বড়াইগ্রামে স্বামীর নির্যাতনের বিচার চান সাংবাদিক নুরজাহান
২২ অক্টোবর, ২০১৮ ০৩:১৮ অপরাহ্ন


  

  • উত্তরবঙ্গ/ অন্যান্য:

    বড়াইগ্রামে স্বামীর নির্যাতনের বিচার চান সাংবাদিক নুরজাহান
    ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৭:১৫ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    নাটোরের বড়াইগ্রামের সাংবাদিক নুরজাহান বেগম (৩৫) তার জুয়ারু ও অর্থলোভি স্বামীর নির্যাতনের উপযুক্ত বিচার চান। তিনি স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে থানায় এজাহার দায়ের করেছেন এবং বুধবার দুপুর ২টায় উপজেলার বনপাড়াস্থ স্থানীয় প্রেসক্লাবে এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে। নুরজাহান অনলাইন পত্রিকা নয়াবর্তার বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি । 

    সাংবাদিক সম্মেলনে নুরজাহান তার লিখিত বক্তব্যে জানান,  ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর মাসে তার বিয়ে হয় গোপালপুর গ্রামের মৃত তজিদ্দিনের ছেলে আব্দুল আওয়াল(৪৫)এর সাথে। বিয়ের সময় দেনমোহর ধার্য্য করা হয় ৫লক্ষ টাকা। বিয়ের আগে থেকেই স্বামী আব্দুল আওয়াল পর নারী ও জুয়া খেলায় আসক্তি ছিলো এবং তা বিয়ের পরেও চলমান রাখে। এ সব কাজে বাধা দিলে আওয়াল আরও বেপোরোয়া হয়ে পড়ে এবং এক পর্যায়ে যৌতুকের দাবী তুলে তাকে বিভিন্ন সময় শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালাতে থাকে। অত্যাচার সইতে না পেরে তিনি  ওই সময় গ্রামীন ব্যাংক (এনজিও) থেকে ২লক্ষ টাকা উঠিয়ে স্বামীকে দেন। সেই টাকা আওয়াল জুয়া আর সুন্দরী নারীদের পিছনে শেষ করে এবং টাকার জন্য পূণরায় তাকে চাপ দিতে থাকেন। টাকা না দিলে আবারও শুরু হয় নির্যাতন। পরবর্তীতে অত্যাচার সইতে না পেরে তিনি নাটোর কোর্টে মামলা করেন এবং সেই মামলায় আওয়াল ২২দিন কারাভোগ করেন। এ সময় আর কখনও নির্যাতন না করার মুসলিকা আদালতে জমা দিয়ে আওয়াল  পূনরায় সংসার জীবন শুরু করে। তবে ওই নতুন সংসার শুরু করার আগে নতুন করে ১লক্ষ ৭৫হাজার টাকা দেনমহোর ধার্য করে আবারও দুইজনে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়। কিছুদিন সংসার ভালো চলার পর এ বছর মার্চ মাস থেকে আবারও শুরু হয় আওয়ালের নারীপ্রীতি ও জুয়া খেলা। একই সাথে আবারও টাকার দাবিতে চলে নির্যাতন। দীর্ঘদিন অত্যাচার চালাতে থাকলে তা সইতে না পেরে তিনি পূণরায় পিসিডি (এনজিও) থেকে ১লক্ষ টাকা উঠিয়ে স্বামীকে দেন। সেই টাকা গুলোও স্বামী আওয়াল একইভাবে শেষ করে আবারও তাকে অত্যাচার শুরু করে। পরিশেষে আর কোন উপায়ন্তর না দেখে তিনি ১৫ সেপ্টেম্বর স্বামীর বিরুদ্ধে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করেন। 

    এ ব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীলিপ কুমার দাস জানান, সাংবাদিক নুরজাহান থানায় মামলা করেছেন এবং মামলার তদন্তের ভার এসআই মামুনের উপর দেওয়া হয়েছে । মামলার তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

     
    নিউজরুম ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৭:১৫ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 124 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    উত্তরবঙ্গ অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    7396163
    ২২ অক্টোবর, ২০১৮ ০৩:১৮ অপরাহ্ন