কাজিপুরে প্রতিটি বিভাগে লক্ষ্যণীয় উন্নতি সাধিত হয়েছে
১৭ জানুয়ারী, ২০১৯ ০৬:২৩ অপরাহ্ন


  

  • কাজিপুর/ অন্যান্য:

    কাজিপুরে প্রতিটি বিভাগে লক্ষ্যণীয় উন্নতি সাধিত হয়েছে
    ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০৩:০৩ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    কাজিপুর প্রতিনিধিঃ লক্ষ্যনীয় অগ্রগতি সাধিত হয়েছে হয়েছে কাজিপুরে। একের পর এক উন্নয়নের মোড়কে কাজিপুর উপজেলা এখন অন্য যেকোন উপজেলার নিকট মডেল উপজেলার তকমা পেতেই পারে। ধারাবাহিকভাবে এই উন্নয়নের নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রি মোহাম্মদ নাসিম। তিনপুরুষের ছোর্ঁয়ায় কাজিপুর তাই এখন সমৃদ্ধ উপজেলাগুলোর কাতারে দাঁড়িয়েছে। এখনও চলছে উন্নয়ন মহাযজ্ঞ। 


    পানি উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে যমুনা নদী ভাঙন রোধে ডান তীর সংরক্ষণে ইতোমধ্যে ২৮৬ কোটি টাকার কাজ শেষ হয়েছে। ৪শ’ ২০ কোটি টাকার কাজের ৪০ ভাগ কাজউতোমধ্যে শেষ হয়েছে। পাউবো এবং বনবিভাগের মাধ্যমে বাস্তবায়িত হচ্ছে ৩০ একর জমির উপর পর্যটনকেন্দ্র। উপজেলার ঢেকুরিয়া পয়েন্টে হচ্ছে শহিদ এম মনসুর আলীর মুর‌্যাল সমৃদ্ধ পর্যটন কেন্দ্রের গেইট। এটি নির্মিত হলে শতাধিক মানুষের এখানে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। আর পরোক্ষভাবে পুরো এলাকার উন্নয়ন সাধিত হবে।

     

    এছাড়া ইছামতি নদী খননের কাজে ৩০ লাখ টাকা কাজ করা হয়েছে। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে কাজিপুর আরডি, হরিনাথপুর, গান্ধাইল, খাষশুড়িবেড় হাইস্কুলসহ কয়েকটি স্কুলে প্রায় ১ কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে। ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে সরকারি মনসুর আলী কলেজের দ্বিতল বাণিজ্য ভবন নির্মিত হয়েছে। ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে মেঘাই খাদ্যগুদাম নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া আরআইএম ডিগ্রি কলেজ, নাটুয়ারপাড়া ডিগ্রি কলেজ, আলহ্জ্বা ফরহাদ আলী কলেজ এর চারতলা ভবন নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। নির্মিত হয়েছে বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজ, সরকারি মনসুর আলী কলেজ, গান্ধাইল উচ্চ বিদ্যালয়  শহিদ নির্মাণ নির্মিত হয়েছে। শিমুলদাইড়, মেঘাই, খুকশিয়া, আরডি উচ্চ বিদ্যালয় ও পশ্চিম বেতগাড়ী দাখিল মাদ্রাসার একাডেমিক ভবন নির্মিত হয়েছে। জেলা পরিষদের মাধ্যমে যোগাযোগ ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে প্রায় ১ কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে। এছাড়া কাজিপুরে দ্বিতল শিক্ষাভবন সম্প্রসারণ কাজ শেষ হয়েছে। 


    উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন (পিআইও) অফিসের মাধ্যমে মানবিক সহায়তা, সামাজিক নিরাপত্তা ও এডিবির মাধ্যমে কাবিটা ৯ হাজার একশ ছয় মেঃটন, নগদ ১৮ কোটি ৮৬ লাখ ৭৯ হাজার টাকা, টিআর- ৪ হাজার চারম ৫১ মেঃটন, নগদ ৫ কোটি ৫৩ লক্ষ ৪২ হাজার টাকা, এছাড়া ইজিটিপি খাতে ১৮ কোটি ৬৯ লক্ষ ৭২ হাজার টাকার কাজ হয়েছে। ৬৬ টি  ব্রিজ কালভার্ট  নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১৮ কোটি ৪১ লক্ষ ৪ হাজার টাকা। এলজিএসপি-এলআইসি, সৌহার্দ্য, মানবমুক্তিসব মিলে কাজিপুরে উন্নয়ন হয়েছে প্রায় ৫শ’ কোটি টাকার কাজ। বিগত চার বছরে কর্মসৃজন প্রকল্পে তের কোটি টাকার কাজ হয়েছে। সাড়ে চার কোটি টাকা ব্যয়ে কৃষ্ণগোবিন্দপুর, পাটাগ্রাম ও খাসরাজবাড়িতে দুইটি গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলছে। এছাড়া বর্তমানে আরও কয়েক কোটি টাকার কাজ চলমান রয়েছে। 


    সড়ক ও জনপথ বিভাগের মাধমে ১২ কোটি টাকার সিরাজগঞ্জ-কাজিপুর সড়কে বরইতলী, পাইকরতলী ও সোনামুখী আরসিসি ব্রিজের কাজ চলমান রয়েছে। পৌর গোল চত্বরে ২২ লাখ টাকা ব্যয়ে মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ কাজ চলছে। সিডিএমসির আওতায় নাটুয়ারপাড়া, শুভগাছা ও খাসরাজবাড়ীতে প্রায় ৪ কোটি টাকার বন্যা আশ্রয় প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলছে। 


    কাজিপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যক্রম সন্তোষজনকভাবে এগিয়ে চলছে। ইতোমধ্যে তারা শতভাগ বিদ্যুৎ কভারেজ দেবার অবস্থায় রয়েছে। ইতোমধ্যে বিড়া অঞ্চলের  বিদ্যুৎ বিতরণ  কাজ শেষ হয়েছে। তার পাশাপাশি কাজিপুরের চরাঞ্চলের ৬ টি ইউনিয়নে বিদ্যুৎ সরবরাহের কাজ এগিয়ে চলছে। কাজিপুরে বর্তমানে মোট ৫৪হাজার ২৫২ জন গ্রাহককে পাঁচশ ৫৫ কিমিঃ লাইনের মাধ্যমে সেবা প্রদান করা হচ্ছে । 

     

    স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,কাজিপুর ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০৩:০৩ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 142 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    কাজিপুর অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    8409228
    ১৭ জানুয়ারী, ২০১৯ ০৬:২৩ অপরাহ্ন