তাড়াশে মহাসড়ক সংস্কার না হওয়ায় ভোগান্তি চরমে
২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০৮:৪৯ অপরাহ্ন


  

  • তাড়াশ/ যোগাযোগ:

    তাড়াশে মহাসড়ক সংস্কার না হওয়ায় ভোগান্তি চরমে
    ০৮ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:২৪ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত

    আশরাফুল ইসলাম রনি:

    সংস্কারের অভাবে সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের  প্রায় ৯ কিলোমিটার সড়ক সামান্য বৃষ্টিতেই খানাখন্দে পরিণত হয়। ফলে যাত্রী ও মালবাহী পরিবহণে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।

     

     

    এদিকে, সংস্কার বিহীন ওই মহাসড়কে দুর্ঘটনার আশংকার মধ্যেই প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করলেও দেখার কেউ নেই।

    জানা গেছে, রাজধানীর ঢাকার সাথে উত্তরাঞ্চলের বিভাগীয় শহর রাজশাহী, জেলা শহর চাপাই নবাবগঞ্জ, নওগাঁ, নাটোর ও দক্ষিণাঞ্চলের কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ ও চুয়াডাঙ্গার যাতায়াতের গুরুত্বপুর্ণ মহাসড়ক হাটিকুমরুল-বনপাড়া ।

    মূলত: মহাসড়কটির বেশিরভাগ অংশ সংস্কার করা হলেও সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার খালকুলা থেকে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার কাছিকাটা টোল প্লাজা পর্যন্ত প্রায় ৯-১০ কিলোমিটার মহাসড়কের সংস্কার কাজ করা হয়নি।

    আর দিনের পর দিন মহাসড়কের সংস্কার বিহীন ওই এলাকায় যানবাহন চালাতে বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে চালকদের এবং চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদেরকে।

    তাড়াশের মহিষলুটি এলাকার আব্দুস সালাম, ছাবেদ আলীসহ একাধিক ব্যক্তি জানান, মহাসড়কের ওই ৯-১০ কিলোমিটার এলাকায় মাঝে মাঝে খানা খন্দের সৃষ্টি হয়েছে। আর সামান্য বৃষ্টিতে খানা খন্দে পানি জমে কাঁদায় পরিণত  হওয়ায় যান চলাচলে ধীরগতির পাশাপাশি যাত্রীদের ভোগান্তিসহ  যানবাহনের যন্ত্রাংশের ক্ষতি হচ্ছে এমনটি জানান মহাসড়কে চলাচলকারী চালক মানিক মিঞা (৪৫)।

     

     

    এছাড়া মহিষলুটি বাজারের পূর্ব পাশে সৃষ্ট হওয়া বিশালকারের গর্তটি যাত্রীদের জন্য মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে এমনটি জানান হামকুড়িয়া গ্রামের ফিরোজ হোসেন (৩৫)।

    তাড়াশ উপজেলার নওগাঁ ইউপি চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান মজুন বলেন, মহাসড়কের তাড়াশ অংশে খানা-খন্দ আর গর্তের কারণে মাঝে মাঝেই তীব্র যানজটেরও সৃষ্টি হয়। অনেক সময় খালকুলা থেকে মহিষলুটি বাজার পর্যন্ত যানবাহনের দীর্ঘ লাইন পড়ে যাওয়ায় যাত্রীদের ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে হয়।

    এ প্রসঙ্গে সিরাজগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. আনোয়ার পারভেজ জানান, হাটিকুমরুল গোলচত্বর থেকে কাছিকাটা টোল প্লাজা পর্যন্ত ২৫ কিলোমিটার মহাসড়ক আমাদের সিরাজগঞ্জ সওজের আওতায় রয়েছে। ইতিমধ্যে এ সড়কের ১৬ কিলোমিটার সংস্কার করা হয়েছে।

    তিনি আরো জানান, প্রিয়োডিক মেইনটেইনেন্স প্রোগাম (পিএমপি) আওতায় এই সড়ক সংস্কারের জন্য প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু প্রকল্পের প্রস্তাবনা ফিরে এসেছে। আবার ডিজাইন করে পাঠাতে বলা হয়েছে। সেই লক্ষ্যে আমাদের সার্ভে কাজ চলছে। তবে এই অর্থ বছরে এই প্রকল্পটি অনুমোদিত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। আগামী অর্থ বছরে প্রকল্পের অনুমোদন হলে এ মহাসড়কের সংস্কার বিহীন ৯ কিলোমিটার সংস্কার কার্যক্রম শুরু হবে।

    তবে মহাসড়কে চলাচলকারী একাধিক চালক ও যাত্রীরা জানান, আগামী ঈদের পুর্বেই মহাসড়কটির সংস্কার না হলে ঈদের আগেই বাড়ি ফেরা যাত্রীদের ও পরিবহণের ভোগান্তি চরমে উঠেবে।

    স্টাফ করেস্পন্ডেন্ট, তাড়াশ ০৮ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:২৪ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 164 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    তাড়াশ অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    9621621
    ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০৮:৪৯ অপরাহ্ন