হাওয়াই মিঠাই তৈরী করে স্বাবলম্বী সলঙ্গার ফরিদুল
০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০১:০২ পূর্বাহ্ন


  

  • রায়গঞ্জ/সলঙ্গা/ জীবনযাত্রা:

    হাওয়াই মিঠাই তৈরী করে স্বাবলম্বী সলঙ্গার ফরিদুল
    ০৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০৫:৪০ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    সলঙ্গা প্রতিনিধি ঃ সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় হাওয়াই মিঠাই বানিয়ে স্বাবলম্বী হওয়ার চেষ্টা করছেন ফরিদুল ইসলাম (২২)।  শিশুদের অতি প্রিয় এ মিঠাই এখন সলঙ্গা থানা সহ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় বিক্রি করছে ফরিদুল। যেখানেই প্রাথমিক, মাধ্যমিক সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাজার এলাকা, গ্রামে গ্রামে বা কোন মেলা উৎসব, সভা হয় সেখানেই চমকপ্রদ হাওয়াই মিঠাই বানিয়ে হাজির হয় ফরিদুল। বাড়ীতে মেশিন সেট করে অতি দ্রুত হাওয়াই মিঠাই  বানিয়ে শিশু, কিশোরদের মন জয় করার চেষ্টায় সে অবিরাম পরিশ্রম করে যাচ্ছে। ফরিদুল ইসলামের বাড়ী সলঙ্গা থানার বওলাতলা গ্রামে। ভ্যান চালক পিতা মোঃ আব্দুস ছাত্তার। তার পরিবারে বাবা-মা, স্ত্রী, সন্তান সহ মোট ৫ জন। নিজস্ব কোন জমা জমি নেই। অভাব অনটনের সংসার।

     

    ৭ হাজার টাকা দিয়ে সে ৮/১০ বছর পূর্বে এ মিঠাই বানানো মেশিন ক্রয় করে এনে বাড়ীতে শুরু করে মিঠাই বানানো ব্যবসা। এ ভাবে একেক এলাকায় একেক দিন বিক্রি শুরু করে সংসার চালাতে থাকে। স্বাবলম্বী হতে থাকে তার অভাবের সংসার। আয়ের টাকা দিয়ে আস্তে আস্তে পরিবারদের নিয়ে সুখেই চলছে সে। ফরিদুল আরও জানায়, এ মিঠাই বানানোর কাজ  খুবই কষ্টকর। স্বাবলম্বী হওয়ার আশায় তবুও আমাকে পরিশ্রম করে এ ব্যবসা করতেই হচ্ছে। কারন দীর্ঘ সময় এক এলাকায় এ ব্যবসা চলে না। এ জন্য হাওয়ায় মিঠাই জেলার গন্ডি পেরিয়ে অন্য জেলার টাঙ্গাইল, ভুয়াপুর, বেড়া, সাথিয়া, শেরপুর, কাচিকাটায় পা রাখতে হয়। অল্প পুজিতে ভালো লাভ বলে আমি এ পেশা বেছে নিয়েছি। এটি শিশুদের প্রিয় খাবার বলে গুণগত মানের দিকেও বিশেষ নজর রাখছি। 

    স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সলংগা ০৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০৫:৪০ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 384 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    রায়গঞ্জ/সলঙ্গা অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    12251895
    ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০১:০২ পূর্বাহ্ন