শ্রীবরদীতে কিশোরী অপহরনের অভিযোগে কলেজ ছাত্র প্রেমকুমার পুলিশের হাতে গ্রেফতার
২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:৫৯ অপরাহ্ন


  

   সর্বশেষ সংবাদঃ

  • জাতীয়/ অন্যান্য:

    শ্রীবরদীতে কিশোরী অপহরনের অভিযোগে কলেজ ছাত্র প্রেমকুমার পুলিশের হাতে গ্রেফতার
    ২৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০১:০৭ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    মো. আব্দুল বাতেনঃ শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের মলামারি গ্রাম থেকে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে অপহরনের অভিযোগে প্রেমকুমার (২৮) নামের এক কলেজ শিক্ষার্থী প্রেমিককে বকশীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রাবাজ এলাকার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে শ্রীবরদী থানা পুলিশ। রোববার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।


    এসময় মেয়েটিকেও সেই বাড়ি থেকেই উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে শ্রীবরদী ও বকশীগঞ্জ উপজেলা জুড়ে। অনেকেই রসিকতা করে বলছেন প্রেম মানে না বাঁধা কি করবে আর রাঁধা।


    জানা যায়, শ্রীবরদী উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের মলামারি গ্রামের আব্দুল করিমের কন্যা কাকিলাকুড়া দাখিল মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীতে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী (১৩) পার্শ্ববর্তী বকশীগঞ্জ উপজেলার চন্দ্রাবাজ গ্রামের বিগেন্দ্র রবিদাসের পুত্র প্রেম কুমার (২৮) সাথে দীর্ঘদিন যাবত মন দেওয়া নেওয়ার এক পর্যায়ে গভীর প্রেমে আবদ্ধ হয়। গত কয়েকদিন আগে সেই কিশোরী কন্যাকে জীবন সঙ্গী হিসেবে পেতে প্রেম কুমার হিন্দু ধর্ম বিসর্জন দিয়ে নোটারী পাবলিক কার্যালয়ে হাজির হয়ে আইনজীবির মাধ্যমে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। কিন্তু মেয়ের এ ভালোবাসাকে মানতে অনেকটাই নারাজ মেয়েটির পরিবার। গত ২৪ অক্টোবর মেয়েটির মা মোর্শেদা বেগম কন্যা অপহরনের অভিযোগ তুলে প্রেম কুমার ও তার বাবা, মামা, মামাত ভাইসহ ৬জনকে আসামী করে শ্রীবরদী থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। পুলিশ এ মামলার সূত্র ধরে বিভিন্নস্থানে অভিযানের পর অবশেষে চন্দ্রাবাজ এলাকার নিজ বাড়ি থেকে প্রেম কুমারকে গ্রেফতার করে। পুলিশ হেফাজতে থাকা সেই কিশোরী সোমবার সকালে জানায় তার বাড়ির পাশেই প্রেম কুমারের নানার বাড়ি।

     

    প্রায় সময়েই নানার বাড়িতে বেড়াতে আসতো সে। আর এর সুবাদেই প্রেম কুমারের সাথে সম্পর্কের সৃষ্টি হয় তার। এক পর্যায়ে প্রেম কুমারকে নিয়ে ঘর বাঁধতে ছুটে যান নিজ বাড়ি থেকে। সে জানায় নিজের ইচ্ছায় প্রেম কুমারের হাত ধরে চলে গেলেও আমার মা তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। আমি প্রেম কুমারকে নিয়েই ঘর বাঁধতে চাই। পুলিশের হাতে আটক প্রেম কুমার বলেন, দুজনের সম্মতিতেই আমরা বিয়ে করেছি। আমি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি। আমার বর্তমান নাম আব্দুর রহমান। আমি চন্দ্রবাজ রশিদা বেগম বিএম কলেজের ১ম বর্ষের ছাত্র। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শ্রীবরদী থানার এসআই আনোয়ার হোসেন বলেন, ছেলেটিকে গ্রেফতার ও মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়েছে।

     

    আজ সোমবার মেয়েটিকে শেরপুর আদালতে নিয়ে ১৬৪ ধারা জবানবন্দী রেকর্ড করা হবে। পরে মেয়েটিকে শেরপুর আধুনিক সদার হাসপাতালে মেডিকেল পরীক্ষার পর বয়স নির্ধারনের জন্য জামালপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটি ছেলেটির সাথে ঘর করবে বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন। সে তার বাবা মার সাথে যাবে না। শ্রীবরদী থানার ওসি মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, কিশোরীর মায়ের অভিযোগে থানায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। আর এ মামলায় ছেলেটিকে আটক করা হয়েছে। আজ সোমবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

    নিউজরুম ২৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০১:০৭ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 718 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    জাতীয় অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    12108485
    ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:৫৯ অপরাহ্ন