হাজার বছরেও বঙ্গবন্ধুর জন্ম হবে না -মোহাম্মদ নাসিম
১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০২:১৭ অপরাহ্ন


  

  • সিরাজগঞ্জ/ অন্যান্য:

    হাজার বছরেও বঙ্গবন্ধুর জন্ম হবে না -মোহাম্মদ নাসিম
    ১১ নভেম্বর, ২০১৯ ০৬:০৯ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    সোহাগ হাসান:  হাজার বছরেও বঙ্গবন্ধুর জন্ম হবে না, মুক্তিযুদ্ধও সৃষ্টি হবে না মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র এবং খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থ্য়াী কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ নাসিম এমপি বলেছেন- পঁচাত্তরের পর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হারিয়ে গিয়েছিল, ভুলুন্ঠিত হয়েছিল এমনকি মুক্তিযোদ্ধাদের পরিচয় পর্যন্ত ছিলনা। ২১ বছর পর বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে মুক্তিযোদ্ধাদের মর্যাদা ফিরিয়ে দিয়েছেন। মুক্তি যোদ্ধাদের বড় গর্ব, তারা  একাত্তরে বঙ্গন্ধুর ডাকে মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। এ সম্মান টাকা দিয়ে কেনা যাবে না, হাজার বছরেও এ দেশের মাটিতে আর বঙ্গবন্ধুর জন্ম হবে না, মুক্তিযুদ্ধও হবে না। তিনি সোমবার বিকেলে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার নওগাঁয় পলাশ ডাঙ্গা যুব শিবির আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধা -জনতা মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেছেন।
    একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন উত্তরাঞ্চলের বেসরকারি মুক্তিযোদ্ধা সেক্টর আব্দুল লতিফ মির্জা পরিচালিত পলাশ ডাঙ্গা যুব শিবির আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধা-জনতা মিলন মেলার এই মহাসমাবেশে সভাপিতত্ব করেন তাড়াশ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান মিয়া। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন অধ্যাপক ডাঃ আব্দুল আজিজ এমপি, অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস এমপি, পলাশডাঙ্গা যুব শিবিরের সর্বাধিনায়ক গাজী সোহরাব আলী সরকার, সহসর্বাধিনায়ক সাবেক এমপি গাজী ম.ম আমজাদ হোসেন মিলন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার গাজী সফিকুল ইসলাম সফি, তাড়াশ উপজেলা আওয়ামীলী সভাপতি আব্দুল হক, সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত কর্মকার প্রমুখ। 
    তাড়াশ উপজেলার নওগা জিন্দানী কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত এ মহাসমাবেশে মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন- একাত্তর সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নেতৃৃত্বে  এদেশের নারী পুরুষ,কৃষক তাঁতী, সাদা কালো সবাই এক হয়ে মুক্তিযুদ্ধ করেছিল।  বাঙ্গালীকে মুক্ত করেছিল। কিন্তু  সাড়ে তিন বছরের মাথায় বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করে  দেশকে আবার পাকিস্তানী ধারায় নিয়ে গিয়েছিল। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ১৯ বার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েও  আবার দেশকে মুক্তিযুদ্ধের ধারায়  ফিরিয়ে এনেছে। মুক্তিযোদ্ধাদের সন্মান দিয়েছেন। শেখ হাসিনা একমাত্র নেত্রী যিনি ২১ বছর পর ক্ষমতায় এসে সে মর্যাদা আবার ফিরিয়ে দিয়েছেন। তিনি  জীবনবাজী রেখে বাংলাদেশের গণ মানুষের সেবায় উৎসর্গ করেছেন নিজেকে। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছন। আর  খালেদা জিয়ার শাসন আমলে বাংলাদেশ অন্ধকারে ছিল।  শেখ হাসিনা সে অন্ধকার দুর করে উন্নয়নের বাতি জ্বালিয়েছেন বাংলার ঘরে ঘরে । তবে মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শক্তির ষড়যন্ত্র এখনো থেমে নেই। বিএনপি , জামায়াত পরাজিত শক্তি চক্রান্ত করছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।  তিনি একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে ঐতিহাসিক নওগার স্মৃতি ধরে রাখার জন্য  মুক্তিযুদ্ধ কমপ্লেক্স নির্মাণের দাবীর সাথে একাত্বতা  প্রকাশ করে অবিলম্বে  নওগাঁয় একটি  মুক্তিযুদ্ধ কমপ্লেক্স নির্মাণের ঘোষণা দেন। 

    স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সিরাজগঞ্জ ১১ নভেম্বর, ২০১৯ ০৬:০৯ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 315 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    সিরাজগঞ্জ অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    12317709
    ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০২:১৭ অপরাহ্ন