গুজবে কাজিপুরে লবণ ক্রয়ের হিড়িক
১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০১:১৮ অপরাহ্ন


  

  • কাজিপুর/ অন্যান্য:

    গুজবে কাজিপুরে লবণ ক্রয়ের হিড়িক
    ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০৬:৩২ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    কাজিপুর প্রতিনিধিঃ‘২০০ টাকা হবে লবণের কেজি’ এমন গুজবে সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলায় লবণ ক্রয়ের হিড়িক পড়েছে। উপজেলার মেঘাই, সোনামুখী ও সিমান্ত বাজারের প্রায় অর্ধশতাধিক পাইকারি ও খুচরা দোকানে লাইন দিয়ে খুচরা বিক্রেতা ও ক্রেতাদের লবণ ক্রয় করতে দেখা গেছে। দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাজার মনিটরিংয়ে নামতে হয়েছে।

        
    সরেজমিনে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুর থেকে কাজিপুর উপজেলায় লবণের কেজি ২০০ টাকা হবে এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এ গুজবের কারণে মঙ্গলবার দুপুর থেকে বিভিন্ন বাজারে লবণের ডিলার, পাইকারি বিক্রেতা ও খুচরা বিক্রেতাদের দোকানে লবণ ক্রয়ের জন্য ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়ে। সন্ধ্যার মধ্যে ডিলার ও অনেক পাইকারি ব্যবসায়ীর গোডাউন লবণ শূণ্য হয়ে যায়। খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন লবণের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য মাঠে নামে। এদিকে হঠাৎ করে এভাবে লবণ ক্রয়ের কারণে অনেক ডিলার বা পাইকারি ব্যবসায়ীরাও বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। সিমান্ত বাজারের লবণ ব্যবসায়ী বাবর কাজী বলেন, একটি গুজবের উপরে ভর করে জনগণ হঠাৎ করে এভাবে লবণ ক্রয় শুরু করেছে। আমরা এখন প্রতি কেজি ৬০ টাকা দামে লবণ বিক্রি করছি। দুপুুর থেকেই আমাদের দোকানে লবণ ক্রয়ের জন্য সাধারণ মানুষ ও খুচরা বিক্রেতারা ভীড় করে। সন্ধ্যার মধ্যে আমাদের দোকানের সমস্ত লবণ বিক্রি হয়ে যায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার গান্ধাইল গ্রামের এক ভ্যান চালক বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে আমার এক আত্মীয় ফোন করে আমাকে জানিয়েছেন-লবণের কেজি ২০০ টাকা হবে। তাই সিমান্ত বাজারে এসেই  ১০ কেজি লবণ ক্রয় করেছি।

    কাজিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে এম লুৎফর রহমান বলেন, লবণের মূল্য বৃদ্ধির গুজবের কারণে বিভিন্ন বাজারে লবণ ক্রয়ের হিড়িক পড়ে যায়। খবর পেয়ে আমরা দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য বাজারে ছুটে আসি। প্রত্যেক ডিলারকে বলে দিয়েছি পূর্বে তারা ব্যবসায়ীদের কাছে যে পরিমান লবণ বিক্রি করতো এখন সেই পরিমাণ বিক্রি করতে হবে। এ ছাড়া খুচরা বিক্রেতাদেরকে ১ কেজি থেকে ২ কেজির উপরে লবণ বিক্রি করতে নিষেধ করেছি।

    কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ হাসান সিদ্দিকী বলেন, এ মুহূর্তে লবণের কোন সংকট নেই। তাই দাম বৃদ্ধির কোন সম্ভবনাও নেই। যদি কোন ডিলার বা ব্যবসায়ী বাজার মূল্যোর চেয়ে বেশি দামে লবণ বিক্রি করে তা হলে তার বিরুদ্ধে আইনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  

    স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,কাজিপুর ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০৬:৩২ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 256 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    Expo
    Slide background EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech EduTech
    Slide background SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech SaleTech EduTech
    কাজিপুর অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    12317377
    ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০১:১৮ অপরাহ্ন