সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ সিরাজগঞ্জের সব খবর, সবার আগেঃ SirajganjKantho.com

www.SirajganjKantho.com

‘প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা না করে বাড়ি ফিরব না’
নিউজরুম ১৬-০৪-২০১৯ ০১:০৪ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ প্রিন্ট সময়কাল May 20, 2019 05:37 PM

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে সড়কপথে বরগুনা থেকে ব্যাটারিচালিত নৌকায় করে ঢাকায় এসেছেন জেলা যুবলীগের এক নেতা। যুবলীগের ওই নেতার নাম হুমায়ুন কবির। তিনি বরগুনা যুবলীগের সহসভাপতি ও বরগুনা পৌরসভার সাবেক কমিশনার।

গত ৪ এপ্রিল সকালে তিনিসহ মোট চারজন বরগুনা থেকে ঢাকার উদ্দেশে নৌকায় করে যাত্রা শুরু করেন। ৮ এপ্রিল রাতে হুমায়ুন কবির রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে পৌঁছান।

চাকা লাগানো নৌকাটি ব্যাটারিচালিত একটি ভ্যানের সঙ্গে যুক্ত। নৌকাটি রান্নাসহ মোবাইল চার্জের ব্যবস্থাও রয়েছে। এ ছাড়া আছে একটি বড় স্পিকার।

নৌকাতেই তাদের খাওয়া-দাওয়া আর থাকার ব্যবস্থা রয়েছে। স্পিকারে বাজানো হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ, জাতীয় নির্বাচনের গান, পদ্মা সেতুর গান এবং বিভিন্ন দেশাত্ববোধক গান।

গতকাল সোমবার বিকালে নৌকাটি নিয়ে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে হাজির হয়েছিলেন হুমায়ুন কবির।

এ সময় গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন হুমায়ুন কবির। তিনি জানান, নৌকাটি বরগুনায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও পরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রচারণার কাজে ব্যবহার করা হয়েছে। নৌকাটি বরগুনার সবার কাছেই পরিচিত।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কেন সাক্ষাৎ করতে চান- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার ব্যক্তিগত কোনো চাওয়া-পাওয়া নেই। আমি শুধু একবার তার সঙ্গে দেখা করতে ও আমার এই নৌকাটি বঙ্গবন্ধুকন্যাকে দেখাতে চাই। বরগুনার মানুষের জন্য দু-একটি কথা বলতে চাই প্রধানমন্ত্রীকে।

যুবলীগ নেতা আরও বলেন, যতদিন আমি পারি ঢাকায় থাকব। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ না করে আমি বরগুনায় ফিরে যাব না। সাক্ষাৎ না করে ফিরে গেলে আমি বরগুনাবাসীর কাছে কী জবাব দেব।

ঢাকায় অবস্থানকালে কোনো সমস্যা হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে কিছুটা আক্ষেপ ও দুঃখ প্রকাশ করেন হুমায়ুন কবির।

তিনি বলেন, রাতে কোনো দিন ঝিগাতলায় আওয়ামী লীগের অফিসের সামনে, কোনো দিন গুলিস্তানের অফিসের সামনে থেকেছি। একেক দিন রাতে একেক জায়গায় নৌকার ভেতরেই ঘুমিয়েছি। কিন্তু দলের কোনো নেতাও আমার সঙ্গে দেখা করেননি।



১৬-০৪-২০১৯ ০১:০৪ অপরাহ্ন প্রকাশিত
http://sirajganjkantho.com/cnews/newsdetails/20190416130407.html
© সিরাজগঞ্জ কন্ঠ, ২০১৬     ||     A Flashraj IT Initiative